অবৈধ সম্পর্কের কারণে মরতে হলো স্ত্রীর প্রেমিককে

বাবলু প্রামাণিক (দক্ষিণ ২৪ পরগণা): অবৈধ সম্পর্ক জানতে পেরে স্ত্রী’র প্রেমিক কে ছাতা দিয়ে পিটিয়ে খুন করার অভিযোগ উঠলো খোদ স্বামীর বিরুদ্ধে। ঘটনাটি ঘটেছে জীবনতলা থানার অন্তর্গত ফকিরতোকিয়া গ্রামে। মৃত প্রেমিকের নাম শম্ভু মন্ডল। মৃতের বাড়ি উত্তর ২৪ পরগনা জেলার ন্যাজাট থানার সরবেড়িয়ার জেলেপাড়া এলাকায়। স্থানীয় ও বারুইপুর জেলা পুলিশ সুত্রে জানা গিয়েছে বিগত বেশ কয়েক বছর ধরে ফকিরতোকিয়া গ্রামের সোনা সরদারের স্ত্রী পুষ্প সরদারে সাথে শম্ভু মন্ডলের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। সেই সম্পর্কের কথা গোপনে জানতে পারে সোনা সরদার। ঘনিষ্ট সম্পর্কের কথা জেনে যাওয়ার পর থেকেই সরদার দম্পতির মধ্যে প্রতিনিয়ত ঝগড়াঝাটি চলতো।

অন্যদিকে স্বামীর নজর এড়িয়ে শম্ভু মন্ডলের সাথে ঘনিষ্ট সম্পর্কে লিপ্ত হত ওই গৃহবধু। অন্যান্য দিনের মতো ওই গৃহবধুর স্বামী বাইরে গিয়েছিলেন কাজে। সেই সুযোগে শম্ভুর সাথে ঘনিষ্ট অবস্থায় মেলামেশা করেন। আচমকা ওই গৃহবধুর স্বামী বাড়িতে ফিরে আসলে ধরা পড়ে যায় ঘনিষ্ট সম্পর্কের কথা। সেই মুহূর্তে স্ত্রীর অবৈধ সম্পর্কের কথা জেনেই স্ত্রীর প্রেমিক শম্ভু মন্ডলকে ছাতা দিয়ে বেধড়ক মারধোর করে সোনা। মাথায় একাধিকবার ছাতার বাঁট দিয়ে আঘাত করায় গুরুতর জখম হয়ে মাটিতে লাগায় লুটিয়ে পড়ে প্রেমিক। ঘটনাস্থলেই মৃত্যু হয় প্রেমিকের। জীবনতলার ফকিরতোকিয়া গ্রামে বৃহষ্পতিবার দুটো নাগাদ এমন ঘটনার কথা চাউর হতেই এলাকা চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়ে। খবর যায় জীবনতলা থানার পুলিশের কাছে। পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে স্ত্রীর প্রেমিক খুনে অভিযুক্ত সোনা সরদারকে গ্রেফতার করে। পাশাপাশি দেহটি উদ্ধার প্রথমে মঠেরদিঘি হাসপাতালে নিয়ে যায়। সেখানে ওই ব্যক্তিকে মৃত বলে ঘোষনা করেন চিকিৎসকর। পুলিশ মৃতদেহটি ময়না তদন্ত পাঠিয়ে তদন্ত শুরু করেছে। এলাকায় রয়েছে চাপা উত্তেজনা।

সাতসকাল ফিচার
সাতসকাল ই-পেপার
সাতসকাল নিউজ
error: Content is protected !!