ফাইনালে হার মহামেডানের, চ্যাম্পিয়ন গোয়া

তীরে এসে ডুবল তরী। ধারেভারে এগিয়ে থাকা এফসি গোয়ার সঙ্গে তুল্যমূল্য লড়াই করেও অতিরিক্ত সময়ের গোলে ডুরান্ড কাপের ফাইনালে হেরে গেল মহামেডান স্পোর্টিং। রানার্স হয়েই সন্তুষ্ট থাকতে হল সাদা-কালো ব্রিগেডকে।

আট বছর আগে ডুরান্ড কাপের ফাইনালে উঠেছিল মহমেডান স্পোর্টিং ক্লাব। ২০১৩ সালে ওএনজিসিকে ২-১ গোলে হারিয়ে শেষ ডুরান্ড কাপ জিতেছিল সাদা কালো ব্রিগেড। মাঝে অনেকটা সময় চলে গেছে। আবার হাতের সামনে ডুরান্ড কাপ জয়ের হাতছানি ছিল ব্ল্যাক প্যান্থারদের সামনে। সেই সুযোগটাকে পেয়েও কাজে লাগাতে পারল না সাদা কালো ব্রিগেড। মোহনবাগান, ইস্টবেঙ্গলের অনুপস্থিতিতে মহমেডান ডুরান্ড কাপ জিতে বাংলা ফুটবলের বিজয় ধ্বজা উড়ানোর দায়িত্ব ছিল তাদেরই কাঁধে। । সেই কারণে রবি সন্ধ্যায় সল্টলেক স্টেডিয়ামে ভিড় জমান বাংলার ফুটবল প্রেমীরা ।

ফাইনাল ম্যাচের মুখ্য অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন রাজ্যপাল জাগদীপ ধনকার , চিফ অফ ডিফেন্স বিপিন রাওয়াত, ক্রীড়ামন্ত্রী অরূপ বিশ্বাস। প্রথমত বেশ কয়েকটি সুযোগ তৈরি করেছিল মহামেডান স্পোর্টিং ।কিন্তু একটাও কাজে লাগাতে পারলেন না মার্কাস জোসেফরা। দ্বিতীয়ার্ধে চাপ বাড়াল গোয়া। কিন্তু গোল হল না । অতিরিক্ত সময়ের শুরুতেই এডু বেইডিয়া গোল করে দলকে প্রথমবার ডুরান্ড কাপ জেতালেন।

সাতসকাল ফিচার
সাতসকাল ই-পেপার
সাতসকাল নিউজ
error: Content is protected !!