৫ বছরের শিশুর সামনে স্ত্রীকে নৃশংসভাবে খুন করল স্বামী!

তারক হরি: চোখের সামনে বাবার হাতে মায়ের নৃশংস খুন দেখল একরত্তি ৫ বছরের শিশুকন্যা! শিহরিত সেই ঘটনা স্বচক্ষে পরখ করে হতবাক হয়ে শিশুটি মায়ের লাশ আগলে বসে রইলো সারা রাত। সকালে শিশুটির কান্নায় প্রতিবেশীরা গিয়ে দেখেন মেঝেতে পড়ে মহিলার নিথর দেহ! ঘটনাটি ঘটেছে পশ্চিম মেদিনীপুর জেলার দাঁতন থানার অন্তর্গত পানিতুনিয়া গ্রামে। মৃত ওই মহিলার নাম পূজা দাস (৩০)।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, বৃহস্পতিবার রাতে স্বামী সুরজ দাস ও তাঁর স্ত্রী পূজা দাসের মধ্যে সাংসারিক বিবাদ চরমে ওঠে। সেই সময়ই পূজা কে শ্বাসরোধ করে খুন করে সুরজ। এই পৈশাচিক ঘটনার সাক্ষী থাকে তাদের ৫ বছরের শিশুকন্যা মমতা দাস। সারা রাত ধরেই শিশুটির কান্নার পেয়েছেন বলে জানান প্রতিবেশীরা। সন্দেহ হওয়ায় সকালে এক প্রতিবেশী তাদের বাড়িতে উঁকি মারতেই স্তম্ভিত হয়ে যান! ছুটে এসে খবর দেন পাড়ার অন্যান্য বাসিন্দাদের। ততক্ষণে অবশ্য গা ঢাকা দেয় সুরজ। এরপরই, পুলিশকে খবর দেওয়া হয়। দাঁতন থানার পুলিশ এসে দেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তে পাঠানোর ব্যবস্থা করে। খবর পাঠানো হয় মৃতার বাপের বাড়িতেও। মৃতার বাবা লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন জামাই ও তাঁর পরিবারের বিরুদ্ধে। এদিকে, ৫ বছরের ওই শিশু কন্যাটি পুলিশ ও প্রতিবেশীদের সামনে পুঙ্খানুপুঙ্খ ভাবে জানায় রাতের ভয়াবহ ঘটনার কথা।

ঘটনায় মৃতার শশুর উদয় দাস কে গ্রেফতার করা হয়েছে। ইতিমধ্যেই অভিযুক্ত স্বামীর খোঁজে তল্লাশি শুরু করেছে দাঁতন থানার পুলিশ।

সাতসকাল ফিচার
সাতসকাল ই-পেপার
সাতসকাল নিউজ
error: Content is protected !!